HomeBlogger Tipsই-কমার্স মার্কেটিং নিয়ে যত কথা

5 months ago (January 23, 2018) 196 Views

ই-কমার্স মার্কেটিং নিয়ে যত কথা

Category: Blogger Tips Tags: , , , , , by

ই-কমার্স কি

ই-কমার্স বলতে ইন্টারনেট ভিত্তিক পরিষেবাকে বোঝায়, যারা লিংকিং, গুগল ও ফেসবুক ব্যবহার করেন, তারা দেখে থাকবেন লিংকিংয়ে “Promote” নামক লেখা থাকে যে টিউনে সেই টিউনটি সচরাচর চোখে পরে ৷ আর ফেসবুকে এটা খুব পরিচিত পেজ বুষ্টিং বা প্রযোজনা ৷ যে টিউন বুষ্ট করা হয়েছে, সে টিউনটি বেশি দেখতে পান ৷পণ্য থাকলো ওয়েবে শেয়ার করলেন ফেসবুক পেজে, প্রয়োজনে বুষ্ট করলেন, একজন ক্রেতা ফেসবুকে আপনার বিজ্ঞাপণ দেখে ক্লিক করলো, বিস্তারিত জানার জন্য নিয়ে আসলো আপনার ওয়েবে, সেখানে লোকটি উক্ত পণ্যের পাশাপাশি আপনার অন্যসব পণ্যও দেখলো ৷ এবং ভালো লাগলে কিনলো ৷ এটাই হলো ই-কমার্স ব্যবসা ৷

পাশাপাশি যারা প্রোফেশনালি ই-কমার্স মার্কেটিং করে, তাদের বিষয়টা ভিন্ন, সাধারণত বড় গার্মেন্টস বা ফ্যাক্টরিগুলো ই-কমার্স মার্কেটিং করে, তবে তা “অনলাইন মার্কেটিং” হিসেবে, আপনি দেখবেন খুব বড় কম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপণ ফেসবুক বা সোস্যাল সাইটে নেই, আমি শুধু প্রাণ-হক বা অলিম্পিকের কথা বলছি না এসব কম্পানির কনজুমার প্রোডাক্টগুলো সোস্যাল সাইটে নেটওয়ার্কে দেখা যায় ৷

ই-কমার্স নিয়ে শুরু করা যাক

 ই-কমার্স ব্যবসায়িরা “অনলাইন মার্কেটিংয়ের সেসব রুলস অনুসরণ করলে বায়ার পাবেন না ৷
আরেকটি বিষয় হলো ই-কমার্স ও অ্যাফিলিয়েটের পার্থক্য ৷
দুটোর বৈশিষ্ট্য প্রায় কাছাকাছি, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কেও নিদৃষ্ট অধ্যায়ে আলোচনা করবো ৷

যা হোকঃ বর্তমান সময়ে ই-কমার্স ব্যবসা করতে হলো ওয়েব সাইটের বিকল্প নেই, একটি ভালোমানের ওয়েবসাইট ভোক্তাকে আশ্বস্ত করে, একইভাবে একটি সাব-ডোমেইন ও খারাপ ওয়েবসাইট ভোক্তার বিশ্বাসে প্রভাব ফেলে ৷
ভালো ওয়েবসাইট বলতে কনটেন্টকে বোঝাচ্ছি ৷ যেমনঃ বিজ্ঞাপণ, গতি, সেবা, চিত্রাংকন ইত্যাদি ৷ এখনকার মানুষ ডিজাইন যত উন্নত দেখে, ততই মনে করে এই প্রতিষ্ঠান খুব ভালো তাই সেখান থেকে পণ্য কিনে, ব্যপারটা দোকান ডেকোরেশন ও বড় মার্কেটের ভেতরের দোকানের সাথে তুলনা করা যায়, পাশাপাশি ওয়েবসাইটের স্প্রিড স্লো থাকলে দিনদিন ভোক্তা হারাবেন, ই-কমার্সের ধর্ম হলো বিজ্ঞাপণ, কিন্ত অনেক ওয়েবসাইটে এতোটাই বিজ্ঞাপণ দেয় যে, একটি পণ্য দেখতে গেলে কয়েকটি বিজ্ঞাপণে ঘিরে ধরে, আর মূল চাহিদা হারিয়ে যায় ৷ সর্বত্র ই-কমার্সের জন্য একটি ভালোমানের ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে ৷ যা আসলেই ব্যবহার বান্ধব ৷

সাব-ডোমেইন ক্রেতার বিশ্বাসে প্রভাব ফেলে কথাটা ঠিক, কিন্ত যারা একেবারে নতুন, পুঁজি কম তাদের জন্য একটু পরামর্শ দিচ্ছি, সত্যি বলতে একটি ওয়েবসাইট করতে প্রচুর টাকা লাগে, যারা ৫-৭ হাজার টাকায় ওয়েবসাইট করে দেয় তাদের কথা কি বলবো… সব থেকে ভালো হয়, অন্তত বেসিক কাজগুলো আপনি জানা, যদি ই-কমার্স ব্যবসা করতে চান ৷

যা হোক আমি কয়েকবার আগে SimDif ও Jimdo নামক দুটি সাইট ফ্রি ডোমেইন সাইট ব্যবহার করতাম ৷ আপনিও
SimDif নামক সাইটটি ব্যবহার করতে পারেন, নিজে নিজে ডিজাইন করতে পারবেন, গ্রুপিং করে ব্যবহার করলে প্রোফেশনাল সার্ভিস ফ্রি পাবেন, ই-কমার্সের জন্য ফ্রি’র ভেতর আমার কাছে এটাই ভালো মনে হয় ৷ তবে টাকা থাকলে কখোনোই সাব-ডোনেইন ব্যবহার করবেন না, ভালো ওয়েব ডিজাইনার দিয়ে সাইট তৈরি করে নিবেন, সম্ভব হলে কিছুটা নিজে শিখবেন ৷ পাশাপাশি গুগল স্মল বিজনেস নামত একটি সার্ভিস আছে সেটাও দেখতে পারেন ৷

ই-কমার্স ব্যবসা ত্বরান্বিত করতে ফেসবুক পেজ অবশ্যই প্রয়োজন, এখন অহরহ ফেসবুক পেজ বেচা-কেনা হয়, সম্ভব হলে পেজ কিনবেন একান্ত না পারলে গ্রুপ কিনবেন, খুব কম দাম ৷

শেষ কথাঃচেষ্টা করেছি ই-কমার্স সম্পর্কে ধারণা দেয়ার জন্য, বাকিটা আপনি জানেন কি শিখতে পারলেন বা পারলেন না, আপনি উপকৃত না হলে, সময় ও শ্রম বাবদ ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন, আপনার কল্যাণ হোক, এভাবেই ডট কমের সাথেই থাকুন আশা করি আরো নতুন কিছু উফার দিব

About Total Post: 26

administrator

Legends are Made, Not Born..!

Related Posts

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.